ময়মনসিংহ, রবিবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ () ২৮°সে
শিরোনাম :
সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সকল অপরাধের বিচার ত্বরান্বিত করা জরুরি  ঈশ্বরগঞ্জে সুজন এর কমিটি গঠিত আধুনিক ও ডিজিটাল ভালুকা পৌর এলাকাগড়ার প্রত্যয়ে মেয়র পদে ইঞ্জিঃ মাসুদের ব্যাপক গণসংযোগ করোনায় আক্রান্ত আওয়ামী লীগ নেতা কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটন জাতীয় সংসদেও হুইপ আতিউর রহমান আতিক করোনায় আক্রান্ত শেরপুরে ক্লিনিক ব্যবসায়ীদের সাথে পুলিশের মতবিনিময় ময়মনসিংহে “মায়ের মমতা কল্যাণ সংস্থা’র ৯ম শাখার উদ্ভোধন শেখ হাসিনার জন্ম না হলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণের অভিযাত্রা সফল হতো না- সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকতায় সম্মাননা স্বারক পেলেন ময়মনসিংহের মফিদুল ইসলাম লাভলু বিডি ক্লিন নকলা টিমের বর্ষপূর্তিতে সম্মাননা স্মারক প্রদান

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক শিক্ষক মহাজোট ময়মনসিংহ জেলা শাখার উদ্যোগে স্মারক লিপি প্রদান।

স্টাফ রিপোর্টার:

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক শিক্ষক মহাজোট ময়মনসিংহ জেলা শাখার সংগ্রামী সভাপতি হাবিবুর রহমান ও সাধারন সম্পাদক আবু আহাম্মদ আলী সাইফুল্লাহর নেতৃত্বে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্বারক লিপি প্রদান।মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী দল,আপনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে পরিচালিত এই সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড প্রশ্নাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে যে,আপনি বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য উত্তরসূরী।আজকের এই শোকাবহ মাসে আমরা স্বশ্রদ্ধাচিত্তে জাতির জনক সহ তাঁর পরিবারের সকল শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করছি।অদ্য(২৩ আগষ্ট)রবিবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে স্বারক লিপি প্রদান করা হয়।

“শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড আর প্রাথমিক শিক্ষা এর মুল এই মহান বাণীর গুরুত্ব অনুধাবন করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুদ্ধবিদ্ধস্ত দেশের দুর্বল অর্থনৈতিক অবস্থার মধ্যেও ১৯৭৩ সালে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির লক্ষ্যে ৩৬১৬৫ টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কর্মরত শিক্ষকদের চাকুরভ জাতীয়করণ করেছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় জাতির পিতার সুযোগ্য উত্তরসূরি গণতন্ত্রের মানসকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ সালের ৯ ই জানুয়ারি শিক্ষক সমাবেশের মাধ্যমে দেশের ২৬১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং কর্মরত শিক্ষকদের চাকুরী জাতীয়করণের ঐতিহাসিক ঘোষণা দিয়ে ১০৪৭৭২ জন শিক্ষক ও তাদের পরিবারের কাছে চির কৃতজ্ঞ হয়ে আছেন।

শুধু তাই নয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে ২০১৪ সালের ৯ ই মার্চ প্রধান শিক্ষকদের ২ ধাপে বেতন বৃদ্ধিসহ দ্বিতীয় শ্রেণীর মর্যাদা এবং সহকারি শিক্ষকদের একধাপ বেতন বৃদ্ধির ঘোষণা দেন। শিক্ষানীতি প্রণয়নসহ উপরোক্ত তিনটি সময়োপযোগী ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এসেছে। এই বিশাল অর্জনের একক দাবিদার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার।

প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থায় এই বিশাল সাফল্য বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ যেন এককভাবে ঘরে তুলতে না পারে তার জন্য প্রশাসনের মাধ্যমে কিছু সংখ্যক ঘাপটি মেরে থাকা জামাত-বিএনপি সমর্থিত কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। অধিগ্রহণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক (চাকুরীর শর্তাদি নির্ধারণ) বিধিমালা এস, আর ও নং ৩১৫ আইন ২০১৩ এর বিধি-২ উপবিধি -গ,বিধি ৯ উপবিধি (১) (২) (৩) অনুযায়ী কার্যকর চাকুরীকালের ভিত্তিতে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ পদোন্নতি সিলেকশন গ্রেড এবং প্রযোজ্য টাইম স্কেল প্রাপ্ত হইবেন।

কিন্তু বড়ই পরিতাপের বিষয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর গত ৮/১০/২০১৭ ইং তারিখের পত্রের মাধ্যমে জরুরী ভিত্তিতে বিভাগ ওয়ারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারদেরকে ডেকে এনে কার্যকর চাকুরীকালের ভিত্তিতে হিসাব না ধরে বিধি-৯ উপবিধি-১ এর ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে বেআইনিভাবে কার্যকর চাকরি কালের তারিখের পরিবর্তে ১/১/২০১৩ (জাতীয়করণের তারিখ) ধরে জ্যেষ্ঠতা তালিকা করার মৌলিক নির্দেশনা দিয়ে, জাতীয়করণকৃত সহকারি শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক পদে চলতি দায়িত্ব প্রদান থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। উল্লেখ্য জাতীয়করণকৃত শিক্ষকদের জন্য যতগুলো আইন ও পরিপত্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক জারি করা হয়েছে তার কোনোটাতেই জাতীয়করণের তারিখ অর্থাৎ ১/১/২০১৩ থেকে চাকুরীকাল গণনা করার কথা বলা হয় নাই।

এখন আবার সাত বছর পর বিধি-৯ উপবিধি-১ এর ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে একই কায়দায় ষড়যন্ত্রকারীদের কু-প্ররোচনায় জাতীয়করণের পূর্বের চাকুরীকাল গণনা না করে, হিসেবরক্ষক অফিসগুলো জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের উত্তোলনকৃত টাইমস্কেল ফেরত প্রদানের জন্য অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

তারই ধারাবাহিকতায় ১২ ই আগস্ট ২০২০ ইং অর্থ মন্ত্রণালয় কর্তৃক সাত বছর পর টাইম স্কেল কর্তনের পত্র জারি করেন যার দরুন ৪৮৭২০ জন টাইম স্কেল জতীয়করণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন নির্ধারনের জন্য চাকুরীকাল গণনা ও অন্যান্য আর্থিক সুবিধাদির প্রাপ্যতায় ১২, আগষ্ট,২০২০ অর্থমন্ত্রণালয় কতৃক জারিকৃত পএটি পত্যাহারের জন্য জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক শিক্ষক মহাজোট ময়মনসিংহ জেলা শাখার সহ-সভাপতি জহিরুল ইসলাম, নবী হোসেন,রইস উদ্দীন,সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া সহ জাতীয়করণ প্রাথমিক শিক্ষক মহাজোট ময়মনসিংহ জেলা শাখার অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থেকে জোড়দার দাবি জানিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

ঈশ্বরগঞ্জে সুজন এর কমিটি গঠিত
আধুনিক ও ডিজিটাল ভালুকা পৌর এলাকাগড়ার প্রত্যয়ে মেয়র পদে ইঞ্জিঃ মাসুদের ব্যাপক গণসংযোগ
করোনায় আক্রান্ত আওয়ামী লীগ নেতা কৃষিবিদ সামিউল আলম লিটন
জাতীয় সংসদেও হুইপ আতিউর রহমান আতিক করোনায় আক্রান্ত
শেরপুরে ক্লিনিক ব্যবসায়ীদের সাথে পুলিশের মতবিনিময়
ময়মনসিংহে “মায়ের মমতা কল্যাণ সংস্থা’র ৯ম শাখার উদ্ভোধন

আরও খবর