ময়মনসিংহ ২৯.৯৯°সে ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১

ডেল্টার পর নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘ল্যাম্বডা’; ডব্লিউএইচও


মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া একের পর এক রূপ বদলাচ্ছে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯)।‘আলফা’, ‘বিটা’, ‘গামা’ ও ‘ডেল্টা’র পর এবার এই ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘ল্যাম্বডা’ শনাক্ত হয়েছে। দক্ষিণ আমেরিকার দেশ পেরুতে প্রথম ‘ল্যাম্বডা’ ভ্যারিয়েন্ট ধরা পড়ে। ইতোমধ্যে এটি ২৯টি দেশে ছড়িয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

বৈশ্বিক সংস্থাটির একটি সূত্রের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম জানিয়েছে, ভাইরাসের এই নবতম ভ্যারিয়েন্টটি নিজেকে এত দ্রুত বদলাচ্ছে যে, তা উত্তরোত্তর উদ্বেগ বৃদ্ধির কারণ হয়ে উঠছে। এক মানুষ থেকে অন্য মানুষে দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে বলেই এই ধরন দ্রুত নিজেকে বদলে নিচ্ছে।

নতুন এই ভ্যারিয়েন্টটির বৈজ্ঞানিক নাম ‘সি.৩৭’। ভারতীয় ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের মতো এখনো এটিকে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’-এর তালিকায় রাখা হয়নি। তবে এই ভ্যারিয়েন্টকে ডেল্টার মতোই সংক্রামক হয়ে উঠতে দেখা গেছে পেরুসহ দক্ষিণ আমেরিকার কয়েকটি দেশে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আপাতত এই ধরনটিকে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব ইন্টারেস্ট’-এর পর্যায়ে রেখেছে।

সম্প্রতি পেরুর ৮১ শতাংশ করোনা রোগীদের দেহে করোনার ‘ল্যাম্বডা’ ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ পাওয়া গেয়েছে। দক্ষিণ আমেরিকার আরেকটি দেশ চিলের এক-তৃতীয়াংশ রোগীও এই ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত।

ইংল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত দেশটি ছয়জন করোনা রোগীর ক্ষেত্রে ভাইরাসের এই ধরনটিকেই সংক্রমণের মূল কারণ হয়ে উঠতে দেখা গেছে।

ডব্লিউএইচওর সূত্রটি জানিয়েছে, ‘ল্যাম্বডা’ ভ্যারিয়েন্ট খুব অল্প সময়ের মধ্যে তার বাইরের স্তরে থাকা শুঁড়ের মতো দেখতে স্পাইক প্রোটিনের অনেকগুলো মিউটেশন ঘটিয়েছে যা উদ্বেগজনক। অ্যান্টিবডি ফাঁকি দিয়ে মানব দেহকোষে ঢোকার নিত্যনতুন কৌশল নিচ্ছে এই ভ্যারিয়েন্টটি।

‘ল্যাম্বডা’ ভ্যারিয়েন্ট ইতিমধ্যেই তার স্পাইক প্রোটিনে সাটি মিউটেশন ঘটিয়ে ফেলেছে। আরও ঘটাতে পারে। স্পাইক প্রোটিনের এই একের পর এক মিউটেশন ধরনটিকে আরও বেশি সংক্রামক হয়ে উঠতে সাহায্য করছে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত লিখুন :

 
   
২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত , দৈনিক ময়মনসিংহ প্রতিদিন | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম
close